শুক্রবার, ১৪ অগাস্ট ২০২০, ১০:৩৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বেলকুচিতে করোনা আতংকের মাঝে আবারও বাল্যবিবাহ দেয়ার চেষ্টা, বন্ধ করলেন ইউএনও শাজাহানপুর মডেল প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত, শাহ্ আলম সভাপতি: জাকারিয়া সম্পাদক নন্দীগ্রামে রাকিব হোসেন নামের এক যুবকের লাশ উদ্ধার জয়পুরহাটে ৯ জন মাদক ব্যবসায়ী আটক ধুনটে বালু মহালের নিলাম ডাকে অংশ নেয়ায়
ছাত্রলীগ নেতাকে পেটালেন যুবলীগ নেতা
বগুড়া শেরপুরের স্বাক্ষর জালিয়াতির ঘটনায় ম্যানেজিং কমিটির ৭ সদস্যের সংবাদ সম্মেলন দুপচাঁচিয়ায় পূজা উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমী পালিত ভাঙনের মুখে কাকিনা-মহিপুর সড়ক, বাঁধের দাবিতে হাজারো মানুষের মানববন্ধন সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জে নির্মানকাজে বাঁধাসৃষ্টি ও চাঁদা দাবীর ঘটনায় থানায় অভিযোগ শিকড় -কাব্য
বগুড়ার শেরপুরে বিদ্যুতের ভয়াবহ লোড শেডিং ॥ দুর্বিসহ জনজীবন

বগুড়ার শেরপুরে বিদ্যুতের ভয়াবহ লোড শেডিং ॥ দুর্বিসহ জনজীবন

রেডিও বগুড়া -সৌরভ অধিকারী শুভ, সিনিয়র রিপোর্টারঃ
প্রাকৃতিক বৈরিতায় জ্যোষ্ঠের খরতাপে এমনিতেই নাভিশ্বাস উঠেছে জনজীবনে। তার সাথে যোগ হয়েছে বিদ্যুতের ঘন ঘন লোডশেডিং।
দুইয়ে মিলে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে বগুড়ার শেরপুর পৌরশহরসহ উপজেলার বিদ্যুতায়িত গ্রামের মানুষের জীবন। প্রকৃতি’র বাতাশ বিহীন বিদ্যুতের পাখায় স্বস্থির নিশ্বাস ফেলতে চাইলেও বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে লোডশেডিং। সকাল থেকে শুরু হয়ে রাত অবধি ২৪ ঘন্টার মধ্যে ৮/১০ বার চলে লোডশেডিং। এদিকে যখন বিদ্যুৎ থাকেনা তখন শেরপুর উপজেলা বিদ্যুৎ বিক্রয় ও বিতরন বিভাগের অফিশিয়াল ল্যান্ড ফোন ব্যস্ত করে রাখা হয়। আবার রিসিভ করলেও দুর্ব্যবহার করা হচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে গ্রাহকদের।
প্রচন্ড তাপদাহ যত তীব্র হয়, বিদ্যুতের লোডশেডিং যেন ততই পাল্লা দিয়ে বাড়তে থাকে। দিনে কয়েক ঘণ্টাব্যাপী লোডশেডিং দিয়ে শুরু হয় প্রথম ধাপ। সন্ধ্যার পরে দ্বিতীয় ধাপে গভীর রাত পর্যন্ত চলতে থাকে বিদু্যুত দেয়া নেয়ার পালাক্রমের খেলা।
তাছাড়া ঘন ঘন লোডশেডিংয়ে বিদ্যুৎ সংকটের ফলে বিপর্যয়ের মুখে পড়েছে শেরপুর উপজেলার ছোট-বড় কলকারখানাসহ বিদ্যুৎ নির্ভরশীল ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো। শিক্ষার্থীদের লেখাপড়া, অফিশিয়াল কার্যক্রমসহ হাসপাতাল ও বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসা সেবা চরমভাবে বিঘিœত হচ্ছে। বিদ্যুতের এমন ভেলকিবাজিতে অনেকেই তাদের প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে বাধ্য হচ্ছেন অনেক ব্যবসায়ীরা।
বিশেষ করে শেরপুর বারোদুয়ারী হাটের বরফকল মালিকরা বিদ্যুৎ বিপর্যয়ে ব্যাপক অর্থ লোকসান দিচ্ছেন। শেরপুর পৌর শহরের গ্রাহক রাসেল কবির বলেন, আকাশে বিদ্যুৎ চমকালে কিংবা একটু বাতাসের চাপ থাকলেই বিদ্যুৎ চলে যায়। বিদ্যুৎ বিপর্যয়ের ফলে পানির সংকট দেখা দেয়।
ব্যবসায়ী রফিক মোহাম্মদ ফিরোজ জানান, এখন ডিজিটাল যুগ, ফলে ব্যবসার সকল কিছুই নিয়ন্ত্রিত হয় মোবাইল ফোন এবং কম্পিউটারে কিন্তু ঘন ঘন লোডশেডিংয়ে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে। সঠিকভাবে মালামাল ডেলিভারীর খবরাদি রাখতে না পারায় ক্ষতির সম্মুখীন হতে হচ্ছে।
ভোগান্তির শিকার ঘাটপাড় এলাকার গৃহিণী রেনুকা পারভীন জানান, এক ঘণ্টা পরপর ইলেক্ট্রিসিটি চলে যাচ্ছে। ইলেক্ট্রিসিটি থাকলেও ভোল্টেজ ওঠানামা করছে। পাম্প বন্ধ থাকার কারণে পানি পাওয়া যাচ্ছে না। অন্যদিকে ফ্রিজ ও খাদ্য সামগ্রী নষ্টসহ দৈনন্দিন কাজে ব্যাঘাত ঘটছে। লোড শেডিংয়ের ফাঁদে পড়ে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনায় বিঘœ সৃষ্টি করছে।
তবে শেরপুরে ঘন ঘন লোডশেডিং হওয়ার পেছনে বরাদ্দকৃত মেগাওয়াটের বিপরীতে অতিরিক্ত বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়ায় বিদ্যুৎ অফিসের অসাধু শ্রেনীর কতিপয় কর্মকর্তা কর্মচারীরাই দায়ি বলে দাবী করছেন সচেতনমহলসহ ভুক্তভোগীরা।
ঘন ঘন লোড শেডিংয়ে জনজীবন ওষ্ঠাগত হলেও বিদ্যুৎ বিভাগের কতিপয় কর্মকর্তারা অবৈধ সংযোগ দিয়ে লাখ লাখ টাকা কামিয়ে নিজের ঘরে আইপিএস লাগিয়ে বিলাশ বহুল জীবনসহ আঙ্গুল ফুলে কলা গাছ হলেও চরম ভোগান্তিতে রয়েছে সাধারণ গ্রাহকরা।
এ ব্যাপারে বিদ্যুৎ বিক্রয় ও বিতরন বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ ফরিদুল ইসলামের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন আমি কোন তথ্য দিতে পারবনা অফিসে আসেন কথা বলব।

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2014 radiobogra.net

Design & Developed By: Fendonus Limited